নিয়মিত খেজুর খেলে শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিকার করে

খেজুর বেশ প্রচলিত পুষ্টিকর একটি খাবার। আপনি জানেন কি নিয়মিত খেজুর খেলে শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিকার করে? না জানলে চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক…

খেজুরের মধ্যে আঁশ থাকে। আঁশ ভালো হজম করতে সাহায্য করে। তাই খেজুর খেলে হজম ভালো হয়। এছাড়া খেজুর পুষ্টিগুণে ভরপুর একটি ফল। রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে খেজুর খুব উপকারী। এটি রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। খেজুরের মধ্যে থাকা প্রাকৃতিক সুগারের জন্য এটি খেতে খুব সুস্বাদু। দিনে কেবল তিনটি খেজুর খাওয়া ভিটামিনের চাহিদা অনেকটাই পূরণে কাজ করে।

প্রতিদিন তিনটি খেজুর খাওয়ার আরো কিছু উপকারিতা রয়েছে। যারা রক্তস্বল্পতায় ভুগছেন, তাদের খাদ্যতালিকায় খেজুর রাখা প্রয়োজন। একশ’ গ্রাম খেজুরে শূন্য দশমিক শূন্য ৯ গ্রাম আয়রন থাকে। এটি শরীরের প্রতিদিনের আয়রনের চাহিদার ১১ ভাগ পূরণ করে।

আয়রন রক্তস্বল্পতার সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। খেজুরের মধ্যে রয়েছে জিক্সাথিন ও লিউটেইন। এগুলো ম্যাকুলার ও রেটিনার স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে ভূমিকা রাখে।

আপনি কি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগছেন? ঘুমানোর আগে কিছু খেজুর খান। এরপর এক গ্লাস পানি পান করুন। এতে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা অনেকটাই কমবে। খেজুর অনেক পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ। এটি খেলে চিনি খাওয়ার ইচ্ছাও পূরণ হয়। তবে ওজন বাড়ে না।

নিয়মিত খেজুর খেলে হার্টের সমস্যা কমে। এক গ্লাস পানির মধ্যে রাতে বিচি ফেলে কয়েকটি খেজুর রাখুন। পরের দিন সকালে খেজুরসহ এই পানি ব্লেন্ড করুন। দিনে কয়েকবার এই পানি পান করতে পারেন। এটি হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধে কাজ করে।

খেজুরের মধ্যে রয়েছে কম পরিমাণ সোডিয়াম। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে খেজুর উপকারী। খেজুরের মধ্যে থাকে উচ্চ পরিমাণ পটাশিয়াম। এটি মস্তিষ্কের স্নায়বিক কার্যক্রম ভালো রাখে।

উচ্চ পরিমাণ পটাশিয়াম স্ট্রোকের আশঙ্কা প্রতিরোধ করে। এ ছাড়া খেজুরের মধ্যে রয়েছে ফসফরাস। এটি মস্তিষ্কের জন্য ভালো। এসব উপকারগুলো পেতে খাদ্যতালিকায় প্রতিদিন অন্তত তিনটি খেজুর রাখুন।

এই রকম আরো নতুন কিছু জানতে হলে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*