স্পেশাল তন্দুরী মালাই পনির এখন নিজেই তৈরি করুন

পনির দিয়ে যে সব সময় ভুনা ব কোফতা, কারি খেতে হবে এমন কোনো নিয়ম নেই। তাছাড়া সেঁকা পনিরও কিন্তু স্বাদে কম যায় না। দরকার শুধু একটু যত্ন আর সময়। তন্দুরি পনির মালাই বানিয়ে দেখুন এখনই। মাইক্রো আভেন না থাকলেও চলবে। প্রথম বার না হয় বাড়িতে গ্যাসের আভেনেই ট্রাই করুন। ছুটির দিন পরিবারের সকলের সঙ্গে তা দিয়েই খাওয়া সারুন। তন্দুর খাবার যাদের রসনায় আলাদা তৃপ্তি এনে দেয়, এ পদ তাদের জন্যই। যেকোনো অনুষ্ঠানে বা আড্ডায় স্টার্টার হিসাবে রাখুন এই পদ।

উপকরণ:

পনির ৫০০ গ্রাম, ক্যাপসিকাম ১টি, পেঁয়াজ ১টি, পেঁয়াজ সেদ্ধ বাটা ৪ চা চামচ, আদা-রসুন বাটা ২ চা চামচ, কাজু বাদাম বাটা ২ চা চামচ, ক্ষীর ২ চা চামচ, ধনে গুঁড়া ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, তন্দুরি মশলা ১ চা চামচ, কাশ্মীরি মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, টক দই ২০০ গ্রাম, ঘি ২ চা চামচ, তেল ও লবণ-চিনি পরিমাণ মতো, কয়লা ১টি।

কার্যপ্রণালি:

পনির বড় বড় টুকরো করে কাটুন। অল্প আদা-রসুন বাটা, টক দই, তন্দুরি মশলা, নুন ও চিনি দিয়ে আধ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখুন। প্যানে ১ চা চামচ সাদা তেল গরম করে পনির দিয়ে ঢাকা দিতে হবে। ১ মিনিট বাদে ঢাকনা খুলে পনির নামিয়ে গ্যাসের আগুনে সেঁকে নিন। ক্যাপসিকাম ও পেঁয়াজ স্লাইস করে কড়াইয়ে ভেজে নিন।

এবার কড়াইয়ে পরিমাণ মতো তেল ও ঘি দিয়ে আদা-রসুন বাটা দিন। তার পরে পেঁয়াজ বাটা ও টম্যাটো বাটা দিয়ে কষতে হবে। মশলা থেকে তেল ছাড়তে শুরু করলে ধনে গুঁড়া, জিরা গুঁড়া, তন্দুরি মশলা, কাশ্মীরি মরিচ গুঁড়া ও ম্যারিনেটের মশলা দিয়ে আবার কষান।

মিনিট পাঁচেক রান্না করে কাজু বাটা, ক্ষীর ও দই মিশিয়ে দিন। ২ কাপ পানি দিতে হবে। গ্রেভি ফুটে উঠলে পনির কাবাবগুলো একে একে দিয়ে দিন। রান্না হয়ে গেলে উপর থেকে ভাজা পেঁয়াজ ও ক্যাপসিকাম ছড়িয়ে দিন। এ বার অন্য আভেনের আগুনে কয়লার টুকরো গরম করুন। পনিরের গ্রেভির মধ্যে একটি বাটি বসিয়ে তার মধ্যে গরম কয়লা রাখুন। কয়লার উপরে ঘি ছড়িয়ে পনিরের পাত্রটি ঢাকা দিয়ে দিন। পরিবেশনের আগে ঢাকনা খুলবেন।

টিপস: যদি পনিরের রঙ সাদা রাখতে চান তাহলে – হলুদ গুঁড়া, রেডিমেট তন্দুরি মশলা, কাশ্মীরি মরিচ গুঁড়াব্যবহার করবেন না। কাচামরিচ ও আস্ত মশলা ব্যবহার করুন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*